পাহাড়ে ক্যাম্পিং করার সকল তথ্য ও টিপস

ভ্রমণের আসল মজাই ক্যাম্পিং-এ। শহুরে ইট কাঠের বন্দী জীবন   থেকে বেরিয়ে পড়তে পারেন সব ব্যস্ততা আর দুশ্চিন্তাকে পেছনে ফেলে। মোবাইল বন্ধ করে পাহাড়ের বুকে তাবু টাঙ্গিয়ে, পাশে আগুণ জ্বলিয়ে নীল আকাশের দিকে মুখ করে শুয়ে থাকা, পরিষ্কার আকাশ, আকাশ ভরা তারা। ভাবুন তো, আর কিছু কি লাগে জীবনে? অথবা হঠাত নামলো ঝুম বৃষ্টি। আপনাকে কারও জন্য ভাবতে হচ্ছে না, কেউ ভাবছে না আপনার জন্য। একেবারেই বন্ধনহীন একটা সময়। নাটকীয় হলেও ভাবুন তো অনুভূতিটা কেমন হবে?

দল বেঁধে পাহাড় কিংবা জঙ্গলে ভ্রমণের আসল আনন্দই হল ক্যাম্পিং করে থাকা। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেয়ার জন্যও সবচেয়ে উপযুক্ত স্থান ও পরিবেশ হচ্ছে তাঁবু টানিয়ে ক্যাম্পিং করে থাকা। তবে ক্যাম্পিং এ যাওয়ার আগে কিছু প্রিপারেশন নিতেই হয়।

পাহাড়ে ক্যাম্পিং করার সকল তথ্য ও টিপস

১।ব্যাগটা গুছিয়ে নিনঃ ক্যাম্পিং এ যাওয়ার আগে  সব থেকে গুরুত্বপূর্ন কাজ হলো ব্যাগ গোছানো।তবে একটা জিনিস খেয়াল রাখবেন ব্যাগ যেন ভারী না হয়।এই জন্য  অপ্রয়োজনীয় কোন জিনিস নেবেন না। আবার প্রয়োজনীয় একটা জিনিস ভুলে যাওয়া আপনাকে অনেক ঝামেলায় ফেলতে পারে। তাই একটা লিস্ট করে ফেলুন।এমন কাপড় নেবেন যেগুলো খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়,কাপড়্গুলো যেন হালকা হয় ,এবং পড়তে আরামদায়ক হয়।

২।আগুন জ্বালানো:ক্যাম্পিং  এর  সাথে আগুন জিনিস টা  এমনভাবে মিশে আছে যে সাথে করে  অবশ্যই ম্যাচ/লাইটার  নিন। কিন্তু ম্যাচ ভিজে যাবার সম্ভাবনা থাকে। তাই লাইটার নিতে পারেন সাথে। সম্পূর্ণ প্রকৃতির উপর নির্ভর না করে দ্রুত আগুন ধরে এমন কিছু অবশ্যই সাথে রাখুন। তুলার প্যাড রাখতে পারেন কিংবা কয়লাও নিতে পারেন।

৩। খাবারঃ আপনি লোকালয় থেকে দূরে থাকবেন তাই বলে তো সাথে খাবার নিবেন না তা তো সম্ভব না।খাবার না নিয়ে গেলে আপনি সেখানে খাবার পাবেন না ।খাবার অর্ডার করতে পারবেন না।তাই  শুকনো খাবার সাথে নিন। কিন্তু সেটা শুধু সাময়িক ক্ষুধা দূর করে এমন খাবার নয়। খেয়াল রাখুন যেন শক্তি বৃদ্ধি করে, শরীরের লবণ, চিনি বজায় রাখে এমন খাবার সাথে রাখার। কোথাও খাবার ফেলবেন না। আপনার তাবুর ভেতরে বা আশেপাশে খাবার ফেলবেন না।

৪।মস্কিউটো রিপেলেন্ট স্প্রে বা মশা মারার স্প্রে:পাহাড়ি মশা কিন্তু খুবই ভয়ংকর তাই অডোমস সাথেই রাখুন। মস্কিউটো রিপেলেন্ট স্প্রে সাথে রাখুন। লম্বা সময়ের ক্যাম্পিংয়ে যাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শে ম্যালেরিয়ার ঔষধ খাওয়া শুরু করতে পারেন।শা তাড়াতে প্রাকৃতিক কিছু উপায় ব্যবহার করুন। যেমন ধোঁয়া ধরানো ইত্যাদি।

৫। ঔষধপত্রঃ কিছু ঔষধ সাথে রাখুন। পেইন কিলার, সেভলন, গ্যাস্ট্রিকের ঔষধ, আপনি নিয়মিত যদি কোন ঔষধ সেবন করেন সেটা- অবশ্যই মনে করে সাথে নিন। রোদ থেকে বাঁচতে সানস্ক্রিন নিন।

৬। চুলাঃরান্নার জন্য এমন চুলা নিন, যা সহজে বহনযোগ্য। ছাঁচে দিয়ে ঝটপট খাবার বানানো যায় এমন চুলা অর্ডার দিয়ে বানিয়ে নিয়ে পারেন। । শুধু আগুণ জ্বালিয়ে এগুলোতে কেক, বিস্কিট করা যায়, খাবার সেদ্ধ করা যায়, রান্নাও করা যায়। বার বি কিউ করতে চাইলে সেই সিস্টেম করে নিতে পারেন।

৭। দড়ি বাঁধাঃঅবশ্যই শক্ত দড়ি সাথে নিন। ক্যাম্পিং এর সময় দড়ির হাজার ও ব্যাবহার রয়েছে।নানান উপায়ে দড়ি বাঁধা শিখে যান সফর শুরুর আগেই। সাথে অবশ্যই শক্ত দড়ি নিন। কতভাবে যে দড়ি কাজে দেবে বিপদে না পড়লে বুঝতে পারবেন না।

৮।আলো: সব সময় আগুন জালিয়ে রাখা বিপদজনক। তাই  আলোর জন্য সবসময় আগুণ জ্বালিয়ে রাখা যাবে না। । হেড ল্যাম্প সাথে নিন কিংবা টর্চ নিন। অবশ্যই কয়েকটি নতুন ব্যাটারি নিন।


ক্যাম্পিং কি,ক্যাম্পিং টিপস,ক্যাম্পিং,বাংলাদেশে ক্যাম্পিং,নাফাখুম ক্যাম্পিং,পাহাড়ে ক্যাম্পিং,পাহাড়ে ক্যাম্পিং,birbangla.com,

Leave a Comment

You cannot copy content of this page