ডিম পাহাড়, বান্দরবান ভ্রমণ ও ভ্রমণের বিস্তারিত দেখুন!

বান্দরবানের অপরূপ প্রকৃতির মাঝে নির্মিত দেশের সবচেয়ে উঁচু ‘আলীকদম-থানচি সড়ক’ এর বর্ণনা কারো পক্ষে সহজে দেয়া সম্ভব নয়। অবর্ণনীয় সবুজ প্রকৃতির মাঝে আরেক বিস্ময় সড়কটির ২২ কিলোমিটার পয়েন্টে অবস্থিত ‘ডিম পাহাড়’। ৩৩ কিলোমিটার সবুজাভ পাহাড়ে আঁকাবাঁকা সর্পিল পথ। ঘনসবুজ পাহাড়ের পাথুরে ঢালে বয়ে চলছে ঝর্ণাধারা। কল্কল্ শব্দে ঝরে এসব ঝর্ণার শীতল জল। অন্যদিকে ডিম পাহাড় এলাকায় দাড়িয়ে ছোঁয়া যায় আকাশের সাদা মেঘ!

দেশের ভ্রমণ পিপাসু মানুষদের কাছে বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় দেশের উচু সড়ক বান্দরবানের থানচি-আলীকদমের ডিম পাহাড়। প্রকৃতির অনাবিল সৌর্ন্দয আর বৈচিত্র্যময় জীবনধারা নিয়ে বান্দরবানের থানচি-আলীকদম ডিম পাহাড়। ডিম পাহাড়ের অবস্থান আলীকদম এবং থানচি থানার ঠিক মাঝখানে। এই পাহাড় দিয়েই দুই থানার সীমানা নির্ধারিত হয়েছে। খুব দুর্গম এই পাহাড়ে যাওয়ার কোন উপায় এতদিন ছিল না। সৌভাগ্যের ব্যাপার হচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে আলীকদম থেকে থানচি পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। ৩৩ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সড়ক নির্মাণে সময় লেগেছে ১০ বছর এবং নির্মাণকালীন বিভিন্ন দুর্ঘটনায় সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের ৩ জন সদস্য মৃত্যুবরণ করেছেন। তার মানে বুঝতেই পারছেন ডিম পাহাড়ের রাস্তা কতখানি দুর্গম।

ডিম পাহাড় ভ্রমণ

ডিম পাহাড় ভ্রমণ

ডিম পাহাড়ে যাওয়ার আগ্রহ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য আরেকটা তথ্য যোগ করে দেওয়া দরকার। আলিকদম-থানচি আঞ্চলিক সড়ক এই মুহূর্তে বাংলাদেশের সবথেকে উঁচু রাস্তা। আলীকদম থেকে এই রাস্তা উপরের দিকে উঠেছে এবং ডিম পাহাড়ের কাছাকাছি রাস্তার উচ্চতা দাঁড়িয়েছে ২৫০০ ফুট। আলীকদম উপজেলা থেকে ৩০ কিলোমিটারের দুরের থানচি-আলীকদমে ডিম পাহাড়ের পুরোটাই পাহাড়ী পথ।

 

কিভাবে যাবেনঃ

ঢাকা থেকে আপনাকে প্রথমে চট্রগ্রাম – কক্সবাজার সড়কের চকরিয়া বাস টার্মিনালে নামতে হবে । ঢাকা থেকে নন এসি বাস ভাড়া নিবে ৭৫০ টাকা। অথবা ট্রেনে চট্রগ্রাম গিয়ে চট্রগ্রাম থেকে বাসে চকরিয়া যেতে পারেন । চট্রগ্রাম থেকে চকরিয়া জন প্রতি বাস ভাড়া ১৭০ টাকা। চকরিয়া বাস টার্মিনাল থেকে মাতামুহুরী পরিবহণ সার্ভিসের বাস প্রতিদিন সকাল ৭.৩০ থেকে সন্ধ্যা ৬.৩০ পর্যন্ত আলিকদমের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। আলিকদম থেকে প্রতিদিন সকাল ৭.০০ শুরু করে বিকেল ৫.৩০ পর্যন্ত চকরিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। দুই দিক থেকেই ৪০ মিনিট পর পর গাড়ী ছেড়ে যায়। ভাড়া জনপ্রতি ৬০ টাকা। সময় লাগে ১ ঘন্টা ৪০ মিনিটের মতো। চকরিয়া থেকে আলীকদম চাঁদের ( জিপ ) গাড়িতে আসতে পারবেন। লোকাল ভাড়া জন প্রতি ৬৫ টাকা। রিজার্ভ ভাড়া এক পথ ১২০০-১৪০০ টাকার মত।

আবার ঢাকা থেকে সড়ক পথে বান্দরবান চলে আসতে পারেন। সেখান থেকে লোকাল বাসে কিংবা চান্দের গাড়িতে করে থানচি বাজার চলে যান। এরপর এখান থেকে চান্দের গাড়ি কিংবা মোটরবাইকে করে ডিম পাহাড়।

 

কোথায় থাকবেনঃ

রাত কাটানোর সব থেকে সেরা জায়গা বিজিবি রিসোর্ট।কিন্তু সেটা আগে থেকে যোগাযোগ  করা ভালো।এছাড়া থানচি বাজারে কিছু সাধারন মানের ।চাইলে জেলা পরিষদের বাংলো তো থাকতে পারবেন।এছাড়া ছোট খাটো অনেক থাকা জায়গার আছে কিন্তু সেগুলোর মানের ব্যাপারে আগে থেকে নিশ্চিত হয়ে উঠবেন।

 

কি খাবেনঃ

থানচি ,আলীকদম ও পানবাজারে দেশীয় খাবারের অনেক হোটেল পাবেন।কিন্তু খাবারের মান ততটো ভালো নাও হতে পারে,মোটামুটি মানের খাবার পাবেন।

 

খেয়াল রাখবেনঃ ঘুরতে যেয়ে এলাকা নোংরা করবেন না।চিপস,খাবারের প্যাকেট যেখানে সেখানে ফেলবেন না।মনে রাখবেন নিজের দেশ,নিজের দেশের সৌন্দর্য ঠিক রাখার দায়িত্ব আপনার। 


ডিম পাহাড়,ডিম পাহাড় ভ্রমণ,ডিম পাহাড়ের উচ্চতা,ডিম পাহাড় বান্দরবান,ডিম পাহাড় ভিডিও,birbangla.com,

 

 

Leave a Comment

You cannot copy content of this page