১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সার্কুলার

NTRCA-Circular

বেসরকারি শিক্ষা নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ  (NTRCA) দেশের  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে শিক্ষক হতে আগ্রহী প্রার্থীদের নিবন্ধন ও প্রত্যয়নের লক্ষ্যে আগ্রহী প্রার্থীদের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে দেশের বেসরকারি শিক্ষক হতে আগ্রহী প্রার্থীদের  ১৭ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণে আবেদন করতে বলা হয়েছে।

নিবন্ধন পরীক্ষা তিন ধাপে  সম্পন্ন হবে ।প্রথম ধাপে প্রিমিলিনারি টেস্ট পরীক্ষা হবে ।পরীক্ষায় উত্তীর্নদের  লিখিত পরীক্ষা হবে দ্বিতীয় ধাপে ।শেষ ধাপ বা তৃতীয় ধাপ হচ্ছে  মৌখিক পরীক্ষা ।লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ন প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষার দিতে পারবে ।

চলতি বছরের ১৫ মে সকাল নয়টায় স্কুল পর্বের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। একই দিন বিকাল তিনটায় কলেজ শাখার প্রিলিমিনারি টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে। বিজ্ঞপ্তি এনটিআরসিএর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

                                              আবেদনের শেষ তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার ২০২০

17th NTRCA Circular 2020

17th NTRCA Teachers Registration Circular 2020

17th NTRCA Circular 2020 Download

17th NTRCA Teachers Registration Exam Date


বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন সিলেবাস,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন সহায়িকা,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ২০২০,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন নিউজ,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ntrca,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ ঢাকা,বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ),birbangla.com,

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০

৩০শে জানুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০ সালের অনার্স ফাইনাল পরীক্ষার রুটিন ২০২০ প্রকাশিত হয়েছে । অনার্স ৪র্থ বর্ষ রুটিন ২০২০ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট WWW.NU.AC.BD তে প্রকাশিত হয়েছে। পরীক্ষা রুটিন অনুসারে অনার্স ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে। যারা অধীর আগ্রহে অনার্স ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষার রুটিন ২০২০ জন্য অপেক্ষা করছিলেন তাদের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করেছে।

পরীক্ষার সময় সুচী অনুযায়ী অনার্স (স্নাতক) পরীক্ষা শুরু হবে প্রতিদিন দুপুর ১ঃ০০ টা থেকে। অনার্স পরীক্ষার রুটিন এবং অনার্স পরীক্ষার ফলাফল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হওয়া মাত্র প্ল্যানেট বাংলা birbangla.com এ প্রকাশ করা হয়েছে। তাই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোন আপডেটের জন্য আমাদের সাথে থাকুন।

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০

 পরীক্ষার সময়সূচী ও কেন্দ্রতালিকা ডাউনলোড করুন

অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০,অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০ pdf,অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন ২০২০ ডাউনলোড,অনার্স ৪র্থ বর্ষের পরীক্ষার রুটিন 2020,birbangla.com,

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাউবি এসএসসি পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি ২০২০

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

        বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাউবি এসএসসি পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি ২০২০

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) এর এসএসসি প্রোগ্রামের ১ম ও ২য় বর্ষ পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচী-২০২০ প্রকাশ হয়েছে। প্রকাশিত সময়সূচী অনুসারে বাউবি’র ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষা ২৪-০১-২০২০ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ১৩/০৩/২০২০ তারিখ পর্যন্ত চলবে।

পরীক্ষা নির্ধারিত দিনসমূহে শুক্রবার ও শনিবার সকাল ৯ টা থেকে ১২ টা এবং বিকাল ২ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত ২টি শিফটে অনুষ্ঠিত হবে। তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৭ দিনের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

 

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত আইন অনুযায়ী ১৯৯২ সালের ২০ অক্টোবর বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়-এর জন্ম। এটি একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অন ক্যাম্পাস  ও আউটার ক্যাম্পাস দুই ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে। বহুমুখি শিক্ষা প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে জ্ঞান-বিজ্ঞানের সৃজন, চর্চা ও বিকাশকে অধিকতর গণমুখী ও জীবন-ঘনিষ্ঠ করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দেয়ার মাধ্যমে একটি সুশিক্ষিত ও আত্মনির্ভরশীল জাতি গড়ে তুলতে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।


বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এস এস সি,বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এস এস সি পরীক্ষার রুটিন ২০২০,birbangla.com,বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এস এস সি রেজাল্ট ২০২০,বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এস এস সি রুটিন,

এম এস ওয়ার্ড শর্টকাট

এম এস ওয়ার্ড শর্টকার্ট

আপনি যদি মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডের সাথে পরিচিত হন, আপনি নিজের কাজের গতি বাড়ানোর জন্য যে কীবোর্ড শর্টকাটগুলি ব্যবহার করতে পারেন তার সংখ্যা দেখে আপনি বিস্মিত হতে পারেন এবং যা  সাধারণত  আপনার কাজকে আরো সহজ করে দেবে।

কেউ কি আপনার কাছে এই সমস্ত কীবোর্ড  মুখস্থ করার আশা করে? অবশ্যই না! প্রত্যেকের চাহিদা আলাদা, তাই কিছু অন্যদের চেয়ে আপনার পক্ষে আরও কার্যকর হবে। এমনকি আপনি যদি কয়েকটি নতুন কৌশল অবলম্বন করেন তবে এটি আপনার কাজকে আরো সহজ ও দ্রুতগতিতে সম্পন্ন করতে সাহায্য করবে। ।

এম এস ওয়ার্ড শর্টকার্ট

আমরা এখানে  দরকারী শর্টকাটগুলো  রাখার চেষ্টা করেছি। এবং, আপনি জেনে খুশি হবেন যে এই  সমস্ত শর্টকাট অনেকদিন ধরে রয়েছে। সুতরাং আপনি ওয়ার্ডের যে  কোনও সংস্করণ ব্যবহার করেন না কেন সেগুলি কাজ করবে।

এম এস ওয়ার্ড শর্টকাট

                                                               সাধারণ প্রোগ্রাম শর্টকাটগুলি

মাইক্রোসফ্ট ওয়ার্ডে অনেকগুলি সাধারণ প্রোগ্রাম শর্টকাট রয়েছে যা আপনার ডকুমেন্টটি সংরক্ষণ থেকে কোনও ভুল পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য সবকিছু করা আপনার পক্ষে সহজ করে তোলে।

১।Ctrl + N   : একটি নতুন  ডকুমেন্ট তৈরী করার জন্য।

২।Ctrl + O  : একটি বিদ্যমান ডকুমেন্ট খোলার জন্য।

৩।Ctrl + S  :  ডকুমেন্ট  সংরক্ষণ করার জন্য

৪।F12          : সংরক্ষণকৃত ডকুমেন্ট খোলার জন্য

৫।Ctrl + W: ডকুমেন্ট বন্ধ করার জন্য

৬।Ctrl + Z:আগের  অবস্থায় ফিরে যাওয়ার জন্য।

৭।Ctrl + Y: একটি ক্রিয়া আবার করুন

৮।Alt + Ctrl + S: একটি উইন্ডো বিভক্ত করুন বা বিভক্ত দৃশ্যটি সরান

৯।Ctrl + Alt + V: প্রিন্ট লেআউট ভিউ

১০।Ctrl + Alt + O: আউটলাইন ভিউ

১১।Ctrl + Alt + N: খসড়া দৃশ্য

১২।Ctrl + F2: মুদ্রণ পূর্বরূপ দেখুন ।

১৩।F1: সহায়তা ফলকটি খোলার জন্য ।

১৪।Alt + Q: “আপনি কি করতে চান তা আমাকে বলুন” বাক্সে যান।

১৫।F9: বর্তমান নির্বাচনের ক্ষেত্রে ক্ষেত্রের কোডগুলি রিফ্রেশ করার জন্য।

১৬।Ctrl + F: একটি ডাটাবেজ সন্ধান করার জন্য।

১৭।F7: বানান এবং ব্যাকরণ চেক করার জন্য।

১৮।Shift+Alt+T   ঃ এটি সময় ইন্সার্ট করতে সাহায্য করে।

১৯।Shift+Alt+D   ঃ  এটি তারিখ  ইন্সার্ট করতে সাহায্য করে।

২০।Shift+Insert   ঃ এটি পেস্ট করতে সাহায্য করে।

২১।Shift+Enter   ঃএটি নতুন প্যারেগ্রাফের পরিবর্তে soft break তৈরি করে।

২২।Shift+F12      ঃCtrl+S এর মত ওপেন থাকা ডকুমেন্টকে সেইভ করা যায় এর মাধ্যমে।

২৩।Shift+F7      ঃসিলেক্টেড শব্দের সমার্থক শব্দের অভিধান চেক করা যায় এই শর্টকাট কী.২০.২১.২২.২৩.২৪।

২৫।Shift+F3     ঃপ্রত্যেক শব্দের শুরুতে বড় অক্ষর অথবা uppercase অক্ষর থেকে lowercase এ সিলেক্টেড টেক্সটের পারস্পরিক পরিবর্তন করে।

২৬।Ctrl+Shift+F12   ঃএটি ডকুমেন্ট প্রিন্ট করে।

২৭।Ctrl+Shift+F6   ঃএর মাধ্যমে আপনি অন্য ওপেন থাকা মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ডকুমেন্টে সুইচ করতে পারবেন।

২৮।Ctrl+Shift+<    ঃএটি সিলেক্টেড টেক্সট সাইজকে এক ফন্ট কমিয়ে দেয়।

২৯।Ctrl+Shift+>   ঃএটি সিলেক্টেড টেক্সট সাইজকে এক ফন্ট বৃদ্ধি করে।

৩০।Alt+Ctrl+F2   ঃএটি নতুন ডকুমেন্ট ওপেন করে।

৩১।Ctrl+Alt+3   ঃএটি টেক্সটকে হেডিং ৩ এ পরিবর্তন করে।

৩২।Ctrl+Alt+2     ঃএটি টেক্সটকে হেডিং ২ এ পরিবর্তন করে।

৩৩।Ctrl+Alt+1   ঃএটি টেক্সটকে হেডিং ১ এ পরিবর্তন করে।

৩৪।Ctrl+5    ঃএটি ১.5 লাইন স্পেসিং তৈরি করে।

৩৫।Ctrl+2   ঃএটি ডাবল স্পেস লাইন তৈরি করে।

৩৬।Ctrl+1   ঃটি সিংগেল স্পেস লাইন তৈরি করে।

৩৭।Ctrl+Spacebar   ঃহাইলাইটেড টেক্সটকে ডিফল্ট ফন্টে নিয়ে যাওয়ার জন্য এটি রিসেট করে।

৩৮।Ctrl+End   ঃএটি কার্সরকে ডকুমেন্টের শেষে নিয়ে যায়।

৩৯।Ctrl+Backspace   ঃএটি কার্সরের বামে থাকা শব্দকে ডিলিট করে দেয়।

৪০।Ctrl+Del     ঃএটি কার্সরের ডানে থাকা ওয়ার্ডকে ডিলিট করে দেয়।

৪১।Ctrl+<down arrow>   ঃএর মাধ্যমে কার্সর প্যারেগ্রাফের শেষে সরে যায়।

৪২।Ctrl+<up arrow>   ঃএর মাধ্যমে কার্সর লাইন বা প্যারেগ্রাফের শুরুতে মুভ করে বা সরে যায়।

৪৩।Ctrl+<right arrow>   ঃএর মাধ্যমে এক শব্দ ডানে কার্সর মুভ করে বা সরে যায়।

৪৪।Ctrl+<left arrow>   ঃএর মাধ্যমে এক শব্দ বামে কার্সর মুভ করে বা সরে যায়।

৪৫।Ctrl+Shift+*   ঃনন-প্রিন্টিং ক্যারেকটারকে প্রদর্শিত বা হাইড করে।

 


এম এস ওয়ার্ড শর্টকাট,এম এস ওয়ার্ড শর্টকাট pdf,birbangla.com,

অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯

অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের রুটিন

অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯

সম্প্রতি ১৪ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে  জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৯ সালের অনার্স  ২য় বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়েছে ।কিন্তু অনিবার্য কারণবশত ১৯,২১,২৩ ডিসেম্বর এর পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে ।স্থগিতকৃত পরীক্ষাসমূহ নিম্নলিখিত পরিবর্তিত সময়সূচী অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষক নিয়ন্ত্রক বদরুজ্জামান নতুন সময়সুচি প্রকাশ করেন ।পরীক্ষা শুরু হবে দুপুর ১টা থেকে ।পরীক্ষার তারিখ ব্যতীত ১১ নভেম্বর প্রকাশিত   বিজ্ঞপ্তির  অন্যান্য বিষয় ও নিয়মাবলি অপরিবর্তিত থাকবে ।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ২য় বর্ষ পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি ২০১৯

National University Honours 2nd Year Exam Changed Routine 2019

 


অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯,অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন 2019,অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯ হিসাব বিজ্ঞান,অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯ সংশোধিত,অনার্স ২য় বর্ষের রুটিন ২০১৯ pdf,এখান থেকে অনার্স ২য় বর্ষ রুটিন 2019 পিডিএফ ডাউনলোড করুন,birbangla.com,

কম্পিউটারের শর্টকাট টেকনিক

Laptop-computer shortcut

কম্পিউটারের শর্টকাট টেকনিক

কম্পিউটারের প্রতিদিনের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে বলে কোনও সন্দেহ নেই! আপনাকে যদি ঘন 
ঘন কম্পিউটার ব্যবহারকার করতে হয় তবে আপনার অবশ্যই কীবোর্ড শর্টকাট কীগুলি সম্পর্কে জানতে হবে। মূলত, 
কম্পিউটার শর্টকাট হল এক বা একাধিক কীগুলির একটি সেট যা সফ্টওয়্যার বা অপারেটিং সিস্টেমে কমান্ড প্রেরণ
 করে। সুতরাং, কয়েকটি কী-স্ট্রোকের সাহায্যে কমান্ড চাওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার উত্পাদনশীলতা বাড়াতে 
পারবেন, অন্যথায়, এটি কেবল মেনু, মাউস বা অন্য কোনও দিকের মাধ্যমে অ্যাক্সেসযোগ্য হবে।

 

                                                                            কি ওয়ার্ড শর্টকাট

1.Ctrl + A – পৃষ্ঠার সমস্ত বিষয়বস্তু নির্বাচন করুন।

2.Ctrl + B – বোল্ড হাইলাইট করা নির্বাচন।

3.Ctrl + C – নির্বাচিত পাঠ্যটি কপি করুন।

4.Ctrl + X – নির্বাচিত পাঠ্য কেটে দিন।

5.Ctrl + N – নতুন / ফাঁকা নথি খুলুন।

6.Ctrl + O – বিকল্প খুলুন।

7.Ctrl + P – প্রিন্ট উইন্ডোটি খুলুন।

8.Ctrl + F – সন্ধান বাক্সটি খুলুন।

9.Ctrl + I – Italicise হাইলাইট নির্বাচন।

10.Ctrl + K – লিঙ্ক .োকান।

11.Ctrl + U – হাইলাইট করা নির্বাচনকে আন্ডারলাইন করুন।

12.Ctrl + V – আটকান।

13.Ctrl + Y – শেষ করা কর্মটি আবার করুন।

14.Ctrl + Z – শেষ ক্রিয়াটি পূর্বাবস্থায় ফেরান।

15.Ctrl + G – বিকল্পগুলি সন্ধান করুন এবং প্রতিস্থাপন করুন।

16.Ctrl + H – বিকল্পগুলি সন্ধান করুন এবং প্রতিস্থাপন করুন।

17.Ctrl + J – অনুচ্ছেদে প্রান্তিককরণের ন্যায়সঙ্গত করুন।

18.Ctrl + L – নির্বাচিত পাঠ্য বা বামদিকে লাইন সারিবদ্ধ করুন।

19.Ctrl + Q – নির্বাচিত অনুচ্ছেদটি বামে সারিবদ্ধ করুন।

20.Ctrl + E – নির্বাচিত পাঠ্য বা লাইনটিকে কেন্দ্রের সাথে প্রান্তিক করুন।

21.Ctrl + R – নির্বাচিত পাঠ্য বা ডানদিকে লাইন সারিবদ্ধ করুন।

22.Ctrl + M – অনুচ্ছেদে প্রবেশ করুন।

23.Ctrl + T – ঝুলন্ত ইনডেন্ট।

24.Ctrl + D – হরফ অপশন।

25.Ctrl + Shift + F – ফন্টটি পরিবর্তন করুন।

26.Ctrl + Shift +> – নির্বাচিত ফন্ট +1 বৃদ্ধি করুন।

27.Ctrl +] – নির্বাচিত ফন্ট +1 বৃদ্ধি করুন।

28.Ctrl + [- নির্বাচিত ফন্ট -1 হ্রাস করুন।

29.Ctrl + Shift + * – মুদ্রণবিহীন অক্ষরগুলি দেখুন বা লুকান।

30.Ctrl + (বাম তীর) – একটি শব্দ বাম দিকে সরান।

31.Ctrl + (ডান তীর) – একটি শব্দ ডানদিকে সরান।

32.Ctrl + (উপরে তীর) – রেখা বা অনুচ্ছেদের শুরুতে সরান।

33.Ctrl + (নীচে তীর) – অনুচ্ছেদের শেষে যান।

34.Ctrl + Del – কার্সারের ডানদিকে শব্দ মুছুন।

35.Ctrl + ব্যাকস্পেস – কার্সারের বাম দিকে শব্দ মুছুন।

36.Ctrl + End – দস্তাবেজের শেষে কার্সারটি সরান।

37.Ctrl + হোম – নথির শুরুতে কার্সারটি সরান।

38.Ctrl + Space – হাইলাইট করা পাঠ্যকে ডিফল্ট ফন্টে পুনরায় সেট করুন।

39.Ctrl + 1 – একক-স্থান লাইন।

40.Ctrl + 2 – ডাবল-স্পেস লাইন।

41.Ctrl + 5 – 1.5-লাইনের ব্যবধান।

42.Ctrl + Alt + 1 পাঠ্য 1 টি শিরোনামে পরিবর্তন করুন।

43.Ctrl + Alt + 2 পাঠ্য 2 শিরোনামে পরিবর্তন করুন।

44.Ctrl + Alt + 3 পাঠ্য 3 টি শিরোনামে পরিবর্তন করুন।

45.F1 – ওপেন সহায়তা।

46.Shift + F3 – নির্বাচিত পাঠ্যের কেস পরিবর্তন করুন।

47.Ctrl + S – সংরক্ষণ করুন।

48.Alt + Shift + D – বর্তমান তারিখটি sertোকান।

49.Alt + Shift + T – বর্তমান সময় সন্নিবেশ করান।

50.Ctrl + W – দস্তাবেজ বন্ধ করুন।

 

                                                                           এক্সেল শর্টকার্ট কী

1.F2 – নির্বাচিত কক্ষটি সম্পাদনা করুন।

2.এফ 5 – একটি নির্দিষ্ট কক্ষে যান।

3.F7 – নির্বাচিত পাঠ্য এবং / বা নথির বানান পরীক্ষা করুন

4. F11 – চার্ট তৈরি করুন

5.Ctrl + Shift +; – বর্তমান সময় লিখুন।

6.Ctrl +; – বর্তমান তারিখ লিখুন

7.Alt + Shift + F1 – নতুন কার্যপত্র

8. Ctrl + A – একটি কার্যপত্রকের সমস্ত সামগ্রী নির্বাচন করুন।

9.Ctrl + B – বোল্ড হাইলাইট করা নির্বাচন।

10.Ctrl + I – হাইলাইট করা নির্বাচনটি ইটালিকাইজ করুন।

11.Ctrl + C – নির্বাচিত পাঠ্যটি অনুলিপি/কপি করুন।

12 .Ctrl + V – পেস্ট করুন।

13.Ctrl + D – পূরণ করুন

14.Ctrl + K – লিঙ্ক  প্রবেশ করান।

15.Ctrl + F – অনুসন্ধান এবং প্রতিস্থাপন বিকল্পগুলি খুলুন।

16.Ctrl + G – গো-টু বিকল্পগুলি খুলুন।

17.Ctrl + H – অনুসন্ধান এবং প্রতিস্থাপন বিকল্পগুলি খুলুন।

18.Ctrl + U – হাইলাইট করা নির্বাচনকে আন্ডারলাইন করুন।

19.Ctrl + Y – নির্বাচিত পাঠ্যটিকে নিম্নরেখাঙ্কিত করুন।

20.Ctrl + 5 – স্ট্রাইকথ্রু হাইলাইট করা নির্বাচন।

21.Ctrl + O – বিকল্প খুলুন।

22.Ctrl + N – নতুন দস্তাবেজ খুলুন।

23.Ctrl + P – মুদ্রণ ডায়ালগ বাক্স খুলুন।

24.Ctrl + S – সংরক্ষণ করুন।

25.Ctrl + Z – শেষ ক্রিয়াটি পূর্বাবস্থায় ফেরান।

26.Ctrl + F9 – বর্তমান উইন্ডোটি ছোট করুন।

27.Ctrl + F10 – বর্তমানে নির্বাচিত উইন্ডোটি সর্বোচ্চ করুন।

28.Ctrl + F6 – খোলা ওয়ার্কবুক / উইন্ডোর মধ্যে স্যুইচ করুন।

29.Ctrl + পৃষ্ঠা আপ এবং পৃষ্ঠা ডাউন – একই নথিতে এক্সেল ওয়ার্কশিটগুলির মধ্যে সরান।

30.Ctrl + ট্যাব – দুটি বা আরও বেশি এক্সেল ফাইলের মধ্যে সরান

31.Alt + = – উপরের সমস্ত কক্ষের যোগফলের জন্য সূত্র তৈরি করুন।

32.Ctrl + – বর্তমান ঘরটিতে উপরের ঘরটির মান সন্নিবেশ করান।

33.Ctrl + Shift +! – কমা বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

34.Ctrl + Shift + $ – মুদ্রা বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

35.Ctrl + Shift + # – তারিখের বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

36.Ctrl + Shift +% – শতাংশ বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

37.Ctrl + Shift + ^ – বৈজ্ঞানিক বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

38.Ctrl + Shift + @ – সময় বিন্যাসে ফর্ম্যাট নম্বর।

39.Ctrl + (ডান তীর) – পাঠ্যের পরবর্তী বিভাগে যান।

40.Ctrl + Space – পুরো কলামটি নির্বাচন করুন।

41.Shift+ স্পেস – পুরো সারিটি নির্বাচন করুন।

42.Ctrl + W – দস্তাবেজ বন্ধ করুন।

                                                                     আউটলুক শর্টকাট কী

1.Alt + S – ইমেলটি প্রেরণ করুন।

2.Ctrl + C – নির্বাচিত পাঠ্যটি অনুলিপি করুন।

3.Ctrl + X – নির্বাচিত পাঠ্য কেটে দিন।

4.Ctrl + P – মুদ্রণ ডায়ালগ বাক্স খুলুন।

5.Ctrl + K – ঠিকানা বারে সম্পূর্ণ নাম / ইমেল টাইপ করা।

6.Ctrl + B – বোল্ড হাইলাইট করা নির্বাচন।

7.Ctrl + I – হাইলাইট করা নির্বাচনটি ইটালিকাইজ করুন।

8.Ctrl + U – হাইলাইট করা নির্বাচনকে আন্ডারলাইন করুন।

9.Ctrl + R – একটি ইমেলের জবাব দিন।

10.Ctrl + F – একটি ইমেল ফরোয়ার্ড করুন।

11.Ctrl + N – একটি নতুন ইমেল তৈরি করুন।

12.Ctrl + Shift + A – আপনার ক্যালেন্ডারে একটি নতুন অ্যাপয়েন্টমেন্ট তৈরি করুন।

13.Ctrl + Shift + O – আউটবক্স খুলুন।

14.Ctrl + Shift + I – ইনবক্স খুলুন।

15.Ctrl + Shift + K – একটি নতুন টাস্ক যুক্ত করুন।

16.Ctrl + Shift + C – একটি নতুন পরিচিতি তৈরি করুন।

17.Ctrl + Shift + J – একটি নতুন জার্নাল এন্ট্রি তৈরি করুন।

                                                                   উইন্ডোজ কী শর্টকাট

1.WIN KEY + D - ডেস্কটপটিকে অন্য উইন্ডোগুলির শীর্ষে আনুন।
2.WINKEY + M - সমস্ত উইন্ডো মিনিমাইজ করুন।
3.WINKEY + SHIFT + M - WINKEY + M এবং
 4.WINKEY + D দ্বারা করা মিনিমাইজ পূর্বাবস্থায় ফিরুন
5.WINKEY + E - মাইক্রোসফ্ট এক্সপ্লোরার খুলুন।
6.WINKEY + ট্যাব - টাস্কবারে খোলা প্রোগ্রামগুলির মাধ্যমে চক্র।
7.WINKEY + F - উইন্ডোজ অনুসন্ধান / অনুসন্ধান বৈশিষ্ট্যটি প্রদর্শন করুন।
8.WINKEY + CTRL + F - কম্পিউটার উইন্ডোটির জন্য অনুসন্ধান প্রদর্শন করুন।
9.WINKEY + এফ 1 - মাইক্রোসফ্ট উইন্ডোজ সহায়তা প্রদর্শন করুন।
10.WINKEY + R - রান উইন্ডোটি খুলুন।
11.WINKEY + U - ইউটিলিটি ম্যানেজার খুলুন।
12.WINKEY + L - কম্পিউটারটি লক করুন (উইন্ডোজ এক্সপি এবং তারপরে)।

কম্পিউটারের শর্টকাট নিয়ম,কম্পিউটারের শর্টকাট টেকনিক,কম্পিউটার শর্টকাট কমান্ড,কম্পিউটার শর্টকাট,কম্পিউটার শর্টকাট নিয়ম,কম্পিউটার শর্টকাট কি,কম্পিউটার শর্টকাট pdf,কম্পিউটার এর শর্টকাট,birbangla.com

MS Word এর বাংলা টিউটোরিয়াল

birbangla.com

আসসালামু আলাইকুম , কেমন আছেন সবাই ? ধরে নিলাম সবাই ভালো আছেন । আজকে আলোচনার বিশয় হল মাইক্রোসফট ওয়ার্ড । আমরা অনেকেই অফিসে কিংবা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজ করি কিংবা চাকরি প্রত্যাশী । এসব জায়গায় চাকরি পেতে হলে অবশ্যই কম্পিউটার এর প্রতি ন্যুনতম জ্ঞ্যান থাকা বাঞ্ছনীয় । এখন এই ন্যুনতম জ্ঞ্যান বলতে কি বুঝায় ? ন্যুনতম জ্ঞ্যান বলতে মাইক্রোসফট অফিসের সকল এপ্লিকেশন সম্পর্কে বিশদ ভাবে জানা এবং ক্ষেত্রে বিশেষ ইমেইল করা এবং কম্পিউটারের খুঁটি নাটি বিশয় সম্পর্কে জানা কেই বুঝায় ।

আমি একে একে আপনাদের এই দুর্বল দিক গুলো নিয়ে বিশদ ভাবে আলোচনা করব, যাতে আপনাদের দুর্বলতা গুলো কাটিয়ে উঠে নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন । তাহলে দেরই না করে আজকের মুল আলোচনায় যাওয়া যাক ।

আমি মাইক্রোসফট ওয়ার্ড বেশ কয়েকটি ভাগে ভাগ করে এখানে লিখবো যা আপনারা টিউটোরিয়াল হিসেবে ও শিখতে পারেন ।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড কি ?

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড হল এমন একটি সফটওয়ার যার মাধ্যমে ব্যাক্তিগত কিংবা বাণিজ্যিক কাজের জন্য কোন নথি যেমনঃবই, চিঠি, ইমেইল কিংবা রশিদ তৈরির জন্য ব্যাবহার করে থাকি। এবং এই ধরনের নথি কে আমরা .docx এক্সটেনশনের মাধ্যমে কম্পিউটারে কিংবা অন্যান্য যে কোন ভার্চুয়াল ড্রাইভে সংরক্ষণ করতে পারি ।

কেন মাইক্রো সফট ওয়ার্ড আমাদের প্রয়োজন ?

  • আমরা ছবির , চার্ট ডায়াগ্রাম কিংবা বিভিন্ন গ্রাফিক্সের সাহায্যে কোন রিপোর্ট কিংবা নথি বানাতে পারি ।

  • আমরা কোন ব্যাবসায়িক কাজের জন্য স্বয়ংক্রিয় চিঠি বা ইমেইল এর জন্য ব্যাবহার করতে পারি ।

  • বইয়ের কিংবা জে কোন অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পত্র ডিজাইন এর জন্য ব্যাবহার করা হয় ।

  • কোন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের মেমো বা রশিদ কিংবা রেফারেন্স নথি বানানোর জন্য এই সফটওয়ার ব্যাবহার করা হয়।

  • এছাড়াও আমরা এই সফটওয়ারের মাধ্যমে ডিজাইন এর কাজ করতে পারি , যেমনঃকোন প্রতিষ্ঠানে আইডি কার্ড ডিজাইন কিংবা কোন বইয়ের মোড়কের ডিজাইন কিংবা কোন কিছুর স্বকৃতি স্বরূপ সার্টিফিকেট বানানোর জন্য ও কিন্তু মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ব্যাবহার করা হয় । তাহলে শুরু করা যাক ।

আমরা আমাদের আলোচনার জন্য সবচেয়ে ব্যাবহারিত মাইক্রো সফট ওয়ার্ড এর ২০১০ এর সংকলন বা এডিশন টা বেছে নিয়েছি । মূলত সব গুলোই প্রায় একই ,শুদু নতুন ভার্শন গুলো সামান্য আপডেট বোলা চলে । তার পরেও আপনারা এটার উপর যদি প্রয়োজনীয় জ্ঞ্যান অর্জন করেন তবে যে কোন ভার্শন আপনার কাছে পানির মতই সহজ মনে হবে ।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ২০১০

সফটওয়ার ইন্সটলেশন এই অংশে থাকবে না । সাধারণত আপনারা কম্পিউটার ক্রয়ের পরে বিক্রেতা আপনার কম্পিউটারে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের এর একটি ভার্শন ইন্সটল করে দেন , কিংবা জে কোন কম্পিউটারে এটা আগের থেকেই ইন্সটল থাকবে । এখন যদি আপনার কম্পিউটারে ইন্সটল না থাকে তবে সেটা নিয়ে আমরা পরবর্তি টিউটোরিয়ালে আপনাদের কে বিস্তারিত ভাবে বুঝিয়ে দিবো ।

ধরুন আপনার কম্পিউটারে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড আগের থেকেই ইন্সটল আছে তাহলে কিভাবে খুঁজে বের করবেন ?

নিচের ছবিতে দেখুন 

MS Word এর বাংলা টিউটোরিয়াল

birbangla.com

ইউন্ডোজ ৭ এর স্টার্ট বাটনে ক্লিক করুন যখন ট্রে ওপেন হবে তখন অল প্রোগ্রামে ক্লিক করুন

নিচের ছবিতে দেখুন

birbangla.com

একটু স্ক্রল কিংবা নিচে সার্চ করলেই মাইক্রোসফট অফিস লেখা একটা ফোল্ডার পাবেন

নিচের ছবিতে দেখুন

birbangla.com

ফোল্ডার টি ক্লিক করুন কিংবা যদি অফিস এপ্লিকেশনের সব গুলো সফট ওয়ার দেখা যায় তবে মাইক্রোসফট অফিস ওয়ার্ড ২০১০ লেখা অপশন টিতে ক্লিক করুন

নিচের ছবিতে দেখুন

birbangla.com

এর পর এরকম একটি খালি পেজ আপনার সামনে দৃশ্যমান হবে ।

নিচের ছবিতে দেখুন

birbangla.com

একটি খালি পেজে আপনাদের সুবিদার্থে সব কিছু দাগ দিয়ে দেখানো হল । এখন আমরা এগুলোর কার্যকারিতা সম্পর্কে জানবো ।

নিচের ছবিতে দেখুন

birbangla.com

File Tab

এই অপশনে ক্লিক করার পর দেখতে পাবেন কিছু নতুন নতুন অপশন দেখাচ্ছে , যেমনঃওপেন ফাইল , সেইভ ফাইল , ক্রিয়েট নিউ ডকুয়মেন্ট অথবা প্রিন্ট ফাইল ।

Quick Access Tool bar

ধরুন আপনি কোন ফর্মুলা লিখে ফেলেছেন বা কোন কিছু ভুল লিখে ফেলেছেন , এবার পুনরায় ফিরে যেতে চান সেই ক্ষেত্রে এখানে পাবেন Undo option . আবার ধরুন আপনি কোন কিছু লিখে মুছে ফেলেছেন সেটা আবার করতে চান সে ক্ষেত্রে পাবেন Redo Option.

Ribbon

এই অংশে থাকে ৩ টি ধাপ

  • Tabs- মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের একদম উপরের অংশে অনেক টা ম্যানুর মত অংশ যেখানে Home , Insert , Page Layout ইত্যাদি থাকে । ট্যাব গুলোর গ্রুপ এবং কমান্ড এর সাথে যুক্ত।

  • Groups- প্রতিটা ট্যাবের ভিতরে জে সকল অপশন গুলো থাকে , যেমনঃহোম ট্যাবের ভিতরে ফন্ট , ফন্ট সাইজ ফন্ট বোল্ড কিংবা আন্ডারলাইন ইত্যাদি যেই অপশন গুলো আছে সেগুলোই হল গ্রুপ ।

  • Commands- কমান্ড হলো গ্রুপ গুলো ব্যাবহার করে যে কাজ করা হয় , যেমনঃবোল্ড গ্রুপ টা সিলেক্ট করার পর যদি পেজে কিছু লেখা হয় সেটা বোল্ড বা মোটা অক্ষরের হয়ে । একে কমান্ড বলে ।

Title Bar

এটা ইউন্ডোর একদম মাঝখানে অবস্থিত , এটি ঐ ডকুয়মেন্টের এর নাম প্রকাশ করে ।

Rullers

মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে সাধারণত ২ ধরনের রুলার বা স্কেল থাকে , এক উলম্ব বরাবর অপরটি আড়াআড়ি বরাবর । আড়াআড়ি বরাবর স্কেল পেজের মার্জিন নির্দেশ করে আর উলম্ব বরাবর স্কেল পেজের মধ্যে কতটুকু জায়গা নিয়ে লেখা হবে সেটা নির্দেশ করে ।

Help

Help Icon টি ওয়ার্ডের একদম উপরে থাকে যা জিজ্ঞাসা চিহ্নের মত দেখায় । এর মাধ্যমে আপনি যদি কোন একটি অংশ না বুঝেন তাহলে এখানে সার্চ কিংবা সেই রিলেটেড কি ওয়ার্ড খুঁজলে ঐ সমস্যার সমাধান টিউটোরিয়াল আকারে পাওয়া যায় । এতে ব্যাবহার কারী তার যেকোন ওয়ার্ড সম্পর্কিত সমস্যা এর সমাধান খুঁজে পান ।

Zoom Control

এই অপশন টি একেবারে ওয়ার্ডে নিচের দিকে অবস্থিত । এর মাধ্যমে আপনি আপনার ডকুয়মেন্ট এর অবস্থান কাছে কিংবা দুরে নিতে পারেন ।

View Buttons

জুম কন্ট্রোল অপশনের একদম পাশেই এর অবস্থান । এখানে মোট ৫ টা শ্রেণি পাওয়া যাবে , যেমনঃ

  • Print Layout Viewএর মাধ্যমে প্রিন্ট কালিন ঐ ডকুয়মেন্ট এর কেমন চেহারা হবে সেটার একটি চিত্র দেখায়

  • Full Screen Reading Viewএর মাধ্যমে আপনি আপনি ডক্যুমেন্ট টি বই এর দেখে পড়ার মত করতে পারবেন

  • Web Layout Viewএর মাধ্যমে ওয়েব ব্রাউজারে এই ডক্যুমেন্ট এর চেহারা কেমন হতে পারে সেটা দেখাবে ।

  • Outline Viewআপনার ডক্যুমেন্ট এর হেডিং , সাব হেডিং থাকতে পারে । এই অপশন সিলেক্ট করলে আপনি আপনার সব হেডিং বা সাব হেডিং গুলো কে নিয়ে সুচি পত্র আকারে দেখাবে ।

  • Draft Viewএর মাধ্যমে আপনি অনেক ভাবে একটি পেজ কে দেখতে পাবেন । ধরুন আপনার প্রিন্টেড পেজে আপনি হেডার এবং ফুটার বাদে দেখতে চান । সেটাও দেখতে পাবেন । বেশির ভাগ ব্যাবহার কারী এই অপশন ( Draft View ) টাই বেশি পছন্দ করে .

Document Area

এটা মূলত সেই যায়গা যেখানে মুল লেখা লেখি টা করা হয় । সবার থেকে মাঝখানে যে সাদা কাগজের মত দেখা যায় সেটাই মূলত Document Area

Status Bar

ভিউ বাটনের বাম পাশে কিছু লেখা দেখা যায় , যেমনঃ– Word Count (ডক্যুমেন্টে কত টি শব্দ লেখা হয়েছে) , page 1 of 1 (এই ডক্যুমেন্টে কত গুলো পেজ আছে) , English (U.S) মানে এই ডক্যুমেন্ট টি কোন ভাষায় লেখা হচ্ছে । এই গুলো কে একসাথে স্ট্যাটাস বার হিসেবে ধরা হয় ।

Dialog Box Launcher

প্রতিটি রিবনের নিচে যে ছোট আকারের কোনাকোনি তির চিহ্ন দেখা যায় সেগুলোই মলত Dialog Box Launcher । এর মাধ্যমে ঐ গ্রুপের কোন অতিরিক্ত ফিচার আপনি দেখতে পাবেন ।

আজকে তাহলে মাইক্রো সফট ওয়ার্ডের পরিচিতি পর্ব তাহলে এই পর্জন্তই । এটি ধারাবাহিক ভাবে চলতে থাকবে । আগামী পর্বে Back Stage View দিয়ে শুরু হবে ।

আপনাদের যেকন অভিযোগ কিংবা পরামর্শ আমাদের লিখতে পারেন নিচের কমেন্ট কক্সে । আমরা চেষ্টা করব আপনাদের প্রয়োজন মত সেবা প্রদান করে সন্তুষ্ট করতে ।

ধন্যবাদ

 

এম এস ওয়ার্ড এর ব্যবহার,এম এস ওয়ার্ড এর কাজ কি,এম এস ওয়ার্ড কাকে বলে,এম এস ওয়ার্ড ২০১০ টিউটোরিয়াল pdf, এম এস ওয়ার্ড শর্টকাট, এম এস ওয়ার্ড ২০১০, এম এস ওয়ার্ড ২০০৭ শেখার বই pdf,এম এস ওয়ার্ড ২০১০ পিডিএফ ,ms word bangla প্রশিক্ষন, microsoft word শেখার বই, microsoft word bangla tutorial, ms word বাংলা টিউটোরিয়াল,