কলকাতা থেকে দার্জিলিং ভ্রমণ খরচ,ভ্রমণ গাইড ও ট্যুর প্লানের সকল তথ্য জানুন!

দার্জিলিং হল ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের একটি শহর ও পুরসভা। এই শহরটি হিমালয়ের শিবালিক পর্বতশ্রেণিতে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬,৭০০ ফু (২,০৪২.২ মি) উচ্চতায় অবস্থিত। শহরটি চা শিল্প, বিশ্বের তৃতীয় উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ কাঞ্চনজঙ্ঘার দৃশ্য ও ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্য দার্জিলিং হিমালয়ান রেলের জন্য খ্যাত একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র। পশ্চিমবঙ্গের আংশিক স্বায়ত্ত্বশাসিত জেলা দার্জিলিঙের সদর দফতর এই শহরেই অবস্থিত।শিলিগুড়ি থেকে শুরু করে শিলিগুড়ি তেই শেষ করবো প্ল্যান।।

কলকাতা থেকে দার্জিলিং ভ্রমণ খরচ,ভ্রমণ গাইড ও ট্যুর প্লানের সকল তথ্য

কলকাতা থেকে দার্জিলিং ট্যুর প্লান

প্রথম দিন: সকাল সকাল NJP স্টেশন বা বাগডোগরা এয়ারপোর্ট পৌঁছে প্রথমেই টোটো বা অটো করে চলে যান তেনজিং নরগে বাসস্ট্যান্ডে।। NJP থেকে কুড়ি টাকা নেবে শেয়ারে।। এক্ষেত্রে বলে রাখি যদি ট্রেনে আসেন স্টেশনে অনেক দালাল খুব কম খরচে আপনাকে দার্জিলিং পৌঁছে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে যাবে সামনের ট্রাভেল এজেন্সি তে এবং জোর করবে প্যাকেজ বুক করার জন্য, সাথে নষ্ট করবে অনেক মূল্যবান সময়।। যদি আপনার প্যাকেজ করার থাকে তবেই এদের সাথে যাবেন, নাহলে স্টেশনের বাইরেই পাবেন অটো/ টোটো।।
তেঞ্জিং নরগে বাস স্ট্যান্ড থেকে আপনারা শেয়ার গাড়ি পাবেন।। সস্তায় পুরো গাড়ি ও ভাড়া করতে পারবেন এখানেই, এ ছাড়াও পুরো গাড়ি সস্তায় পাবেন দার্জিলিং মোরে।। শেয়ারে গেলে ভাড়া লাগবে ২০০ টাকা, পুরো গাড়ি বুক করলে ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা লাগে।। দার্জিলিং পৌঁছতে সময় লাগে ৩.৫ থেকে ৫ ঘণ্টা।।
দার্জিলিং এ ম্যাল এর কাছের হোটেল গুলোর রেট একটু বেশি, তাই সস্তায় চাইলে একটু দূরে অনেক হোটেল পাবেন।। ২ জনের রুম ৭০০-৮০০ টাকা থেকে শুরু হয়।। পৌঁছে সবার আগে হোটেল বুক করে নিন ও একটু ফ্রেশ হয়ে বেরিয়ে পড়ুন ম্যাল এর উদ্দেশ্য।। দুপুরের লাঞ্চটা সেরে নিন ম্যাল এর আসে পাশেই, ভেজ থালি পেয়ে যাবেন ৮০-১০০ টাকায়।। বিকেল ও সন্ধ্যা কাটিয়ে নিন ম্যাল এই।। রাতের ডিনার সেরে নিন ১০০ টাকায়।।
প্রথম দিনের খরচ:
ব্রেকফাস্ট ৫০ টাকা
গাড়ি ২০০ টাকা
লাঞ্চ ১০০ টাকা
হোটেল এক জনের ৫০০ টাকা
ডিনার ১০০ টাকা
মোট: ৯৫০ টাকা
দ্বিতীয় দিন: আজ পা এ হেঁটে ঘুরে নিন পুরো দার্জিলিং, প্রথমেই চলে যান দার্জিলিং স্টেশনে।। ওখান থেকে শেয়ার গাড়িতে চলে যান ঘুম স্টেশন, ৩০ টাকা নেবে।। ঘুম স্টেশনে ঘুরে আবার শেয়ার গাড়ি ধরে চলে আসুন বাতাসিয়া লুপ এ, ৩০ টাকা নেবে।। বাতাসিয়া লুপ ঘুরে নিন, খুব ভালো লাগবে।। তারপর আবার শেয়ার গাড়িতে ফিরে আসুন দার্জিলিং ৩০ টাকায়।। বিকেল টা দার্জিলিং এর আসে পাশের বাজার ঘুরে বা কাঞ্চন জঙ্ঘা দেখতে দেখতে সময় কাটিয়ে নিন।।
দ্বিতীয় দিনের খরচ:
হোটেল: ৫০০ টাকা
ব্রেকফাস্ট: ৫০ টাকা
লাঞ্চ: ১০০ টাকা
ডিনার:১০০ টাকা
গাড়ি: ১০০ টাকা
মোট: ৮৫০ টাকা
তৃতীয় দিন: আজ ফেরার পালা।। সকালে কোথাও বসে উপভোগ করুন কাঞ্চনজঙ্ঘা কে।। তারপর হোটেল থেকে চেক আউট করে আবার নিয়ে নিন শেয়ার গাড়ি শিলিগুড়ির জন্য।। ১৫০ টাকা থেকে ২০০ টাকা লাগবে।। শিলিগুড়ি ফিরে বেরিয়ে পড়ুন নিজের গন্তব্যে।।
তৃতীয় দিনের খরচ:
ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ ও ডিনার: ২৫০ টাকা
গাড়ি ভাড়া: ১৫০ টাকা
মোট ৪০০ টাকা
এছাড়া আপনার ইচ্ছা হলে টয় ট্রেন করে ঘুম স্টেশন যেতে পারেন।। দার্জিলিং গিয়ে টয় ট্রেনে চাপার মজাই আলাদা।। ঘুরে আসতে পারেন দার্জিলিং এর রোপ ওয়ে।। যেতে পারেন দার্জিলিং চিড়িয়াখানা।। টাইগার হিলে যেতে পারেন সূর্যোদয় দেখতে।। যাওয়ার ও আসার পথে পুরো গাড়ি বুক করলে একটা সাজেশন দিচ্ছি: যাওয়ার সময় শিলিগুড়ি থেকে মিরিক, নেপাল বাজার, লেপচা জগৎ ইত্যাদি দেখে বিকেলে পৌঁছে যান দার্জিলিং।। ফেরার সময় ঘুম, কার্শিয়াং ইত্যাদি দেখে ফিরতে পারেন শিলিগুড়ি।। এতে সময়/টাকা বাঁচবে ও অনেক কিছু দেখে নিতে পারবেন।।

Leave a Comment